/ / BENGALI LOVE STORY - 'আমি শুধু তোর'

BENGALI LOVE STORY - 'আমি শুধু তোর'






রুপম আর তনয়া একসাথে টিউশন পড়ে । ওদের মধ্যে মিষ্টি একটা সম্পর্ক তৈরি হয়েছে গত কয়েক মাসে । একদিন টিউশন ছুটির পরে ওরা দাঁড়িয়ে রয়েছে দুজন । বাকি সবাই যে যার বাড়ি চলে গেছে । হটাৎ ঝমঝমিয়ে বৃষ্টি নামলো । কোনরকমে একটা বন্ধ দোকানের সামনে গিয়ে দাঁড়ালো । আটকে পড়লো ওরা দুজন ঐখানেই । রাত আট টা বেজে গেছে । ওদের কাছে ছাতা কিংবা রেন কোট ছিলোনা । বাড়ি ফিরতে হলে ভিজে ভিজে ফিরতে হবে । তাই দুজন ই যে যার বাড়িতে ফোন করে জিজ্ঞেস করলো কি করবে । আর দুজনের বাড়ি থেকেই জানালো যে বৃষ্টি থামলে যেন ফেরে । ভালোই হলো । অনেকদিন পর ওরা এতটা সময় একা একসাথে কাটবে । দুজনেই হালকা লজ্জায় রয়েছে ।

রুপম - কীরকম জোরে বৃষ্টি হচ্ছে দেখো !!!

তনয়া - হুমম…

রুপম - তোমার বৃষ্টিতে ভিঝতে ভালো লাগে ?

তনয়া - হুমম...তোমার ?

রুপম - না...আমার বৃষ্টি হলে ভয় করে ...

তনয়া - ( হেসে ) কেন ???

রুপম - আাকাশে বিদ্যুৎ চমকায় তাই...

তনয়া - ভিতুরাম কোথাকার…( হাসতে হাসতে )

রুপম - ওই ভিতুরাম বলবে না একদম !

তনয়া - একশো বার বলবো...ভিতুরাম...ভিতুরাম…

রুপম - তবে রে !!! 

রুপম উল্টোদিকে ঘুরে দাঁড়িয়ে থাকলো ইচ্ছে করে । ও খুব রেগে গেছে এমন ভাব করলো ।

তনয়া - ওলে বাবা আমার ভিতুরামটার আবার রাগ ও হয় দেখছি….

রুপম - হম হয় … 

তনয়া - আচ্ছা আর বলবো না … এবার তো এদিকে ঘোর !

( তনয়া একটু এগিয়ে আসতেই রুপম ওর দিকে ঘুরে ওর হাত ধরে এক টানে টেনে নিয়ে জড়িয়ে ধরলো ওকে...আর ঠিক সেই সময় খুব জোরে একটা বাজ পড়লো...তনয়া রুপমের বুকে ভয়ে কুঁকরে গেল । দুজন দুজনকে অস্টে পৃষ্টে জড়িয়ে ধরে দাঁড়িয়ে থাকলো । একটু পরে বাজ পড়া বন্ধ হয়ে শুধুই ঝমঝমিয়ে বৃষ্টির শব্দে চারপাশ ভরে গেল )

রুপম - কি ম্যাডাম? এবার দেখলেন তো কে আসল ভিতুরাম?

তনয়া - চলো না আজকে বৃষ্টিতে ভিজি…

রুপম - না…

তনয়া - ওকে…( রাগ দেখিয়ে একটু সরে গিয়ে চুপ করে দাঁড়িয়ে থাকলো তনয়া )

রুপম তাকিয়ে দেখলো তনয়ার মুখ খানা মলিন হয়ে আাছে...

রুপম - কি হয়ছে তোমার ? ( তনয়ার কাছে গিয়ে বললো )

তনয়া - কই….আমার কিছু হয়নি তো…

রুপম - তাহলে এমন করে দাঁড়িয়ে আছ কেন ?

তনয়া - কেমন করে দাঁড়িয়ে আছি?

রুপম - তোমার মিষ্টি হাসিটা তাহলে দেখছি না কেন ? এই তো এক্ষুনি কতো লাফাচ্ছিলে বৃষ্টিতে ভেজার জন্য !!!

তনয়া - হি...হি...হি...আমি তো হাসছি... হয়েছে?

হাসিটা যে শুধুই তাকে দেখানোর জন্য ছিল তা তার বুঝতে অসুবিধে হলনা...তাই সে বুঝতে পেরে বললো….

রুপম - চল বৃষ্টিতে ভিজি….

তনয়া - না থাক...দরকার নেই...
রুপম - উহঃ...আর ঢং করতে হবেনা...চলুন…

( এবার তনয়া সত্যিকারের হাসি মুখে রুপমের দিকে তাকালো । )

তনয়া - সত্যি !!!

রুপম - হুমম …।  BENGALI LOVE STORY

তনয়া - তোমার তো ভয় করে…

ছেলে- তোমার ভয় দেখে আমার ভয় কেটে গেছে বুঝেছো ! তুমি ভয় পেলে তোমায় জড়িয়ে ধরতে হবে তো !

তনয়া রুপমের দিকে তাকিয়ে মন ভরা হাসি হাসতে থাকলো...সন্তুষ্টির হাসি ... 

রুপম - আর হাসতে হবেনা … চলো এবার…

রুপম তনয়ার হাত ধরে টেনে নিয়ে গেল রাস্তায়...তারা বৃষ্টিতে ভিজতে লাগলো । তনয়া ভীষণ আনন্দে বৃষ্টিতে ভিজতে থাকলো আর নাচতে থাকলো । হঠাৎ আবার বাজ পড়লো । মেঘের গর্জন শুনে তনোয়া ভয় পেয়ে চিৎকার করে এসে রুপম কে জড়িয়ে ধরলো । তারা কিছুক্ষণ এমন ভাবে থাকলো । আক্তাখুব সুন্দর রোম্যান্টিক পরিবেশ সৃষ্টি হলো তাদের মাঝে । তনয়া কাঁপছে । তার সারা শরীর বৃষ্টিতে ভিজে ঠান্ডা হয়ে গেছে । রুপম তার গাল দুটো চেপে ধরে ওপরে তুললো । তনয়া চোখ বন্ধ করে রয়েছে । মাঝে মাঝে বিদ্যুতের ঝলকানিতে ওর মুখ দেখতে পাচ্ছে রুপম । বৃষ্টির ফোঁটাগুলো ওর গলা বেয়ে পড়ছে । রুপম একবার ওর মুখটায় হাত বুলিয়ে আলতো করে ঠোঁটে ঠোঁট ছোয়ালো । ঠান্ডা পরিবেশে উষ্ণ গভীর চুম্বনে মগ্ন হলো তারা। কিছুক্ষণ পরে তনয়া রুপমের বুকে মাথা রাখলো ।

তনয়া - তুমি সারা জীবন এভাবে থাকবে আমার পাশে?

রুপম - হুমমম...থাকবো...সারাজীবন থাকবো ।

তনয়া - সত্যি বলছো তো ?

রুপম - যতদিন আমার এ দেহে প্রান থাকবে, রুপম শুধু তনয়ার ।

তনয়া - কখনও এই হাত ছাড়বে না কথা দাও !

রুপম - আমি তোমার হাত ধরছি ছাড়ার জন্য নয় …
সারা জীবন ধরে রাখারর জন্য । যেখানে যাই হোয় যাক আমাদেরকে কেউ কখনো আলাদা করতে পারবেনা ।

তনয়া - I love you

রুপম -না...বলো I will love you …

সেদিন বৃষ্টি থামার পর দুজন বাড়ি ফেরে । প্রতিদিন ওরা যেন নতুন করে একটু একটু করে অনেকটা ভালোবেসে ফেলে আর এভাবেই তাদের ভালবাসার দিনগুলি কাটতে থাকে । রুপম ভেবেছিল যে তার ভালবাসার মানুষটির সাথে বাকি জীবন টা কাটিয়ে দেবে । কিন্তু সেটা আর সম্ভব হল না ।  HEART TOUCHING LOVE STORY

হটাৎ একদিন টিউশনেই তনয়া খুব অসুস্থ হয়ে পড়লো । টিউশন এর স্যার ওর বাড়িতে খবর দিয়ে ওকে বাড়ি পাঠিয়ে দিলো । ওখানকার সমস্ত ডাক্তার দেখালেও ও ধীরে ধীরে আরও অসুস্থ হয়ে যেতে থাকলো । আগের মত সবসময় আর ফোন বা চ্যাট করতে পারেনা তনয়া । শরীরে কুলোয়না ওর আর । কয়েকদিন পরে ওর বাবা মা ওকে নিয়ে বাইরে গেল চিকিৎসা করাতে । আর সেখান থেকেই জানতে পারে তনয়ার ক্যান্সার হয়েছে । অনেক টাকা খরচ হবে ওকে বাঁচাতে আর বাঁচলেও ওর রূপ চুল আর কোনোটাই থাকবেনা । এইসব শুনে তনয়া ডিপ্রেশন এ চলে যায় । তাকে নিয়ে বাড়ি ফিরে আসে তার বাবা মা । ডাক্তার বলে দিয়েছে ওকে হাসি খুশি রাখতে কিন্তু ও বাড়ির কারোর সাথেই কথা বলেনা । তনয়া ভাবে তার অমন শরীরের কথা রুপম জানতে পারলে কখনোই তাকে আর ভালবাসবে না । আর তখন সেই যন্ত্রণা আর সে নিতে পারবেনা । আর ও ধরেই নেয় যে ও আর বেশিদিন বাঁচবেনা । তাই রুপম কে এভোয়েড করতে থাকে ও ।।

দিনদিন মেয়েটা আরও অসুস্থ হয়ে যেতে থাকে । ডাক্তার বারবার ওর মা বাবাকে বলে ওকে খুশি রাখতে । নাহলে ও ভালো হতে পারবেনা । মেয়েটা বাড়ির কারোর সাথেই তেমন কথা বলছে না বা যখনই কথা বলছে তখনই ঝগড়া করছে দেখে একদিন ওর বাবা মা ঠিক করলো যে কিছু বন্ধুকে ওর কাছে নিয়ে আসবে । ওর প্রিয় বন্ধু মঞ্জিমাকে ওর মা ফোন করে বললো যেনো আরো কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে ও তনয়ার কাছে আসে ।

পরেরদিন মঞ্জিমা যথারীতি রুপম ও আরও তিনজন বন্ধুদের নিয়ে ওদের বাড়ি এলো । তনয়া তখন ঘুমোচ্ছিল । ওরা ওর রুমে ঢুকলো । তনয়ার বাবা মা ওদের সাথে ওকে একা ছেড়ে দিল । দরজা বন্ধ করে দিয়ে চলে গেল । রুপম ওর মাথার কাছে গিয়ে বসে মাথায় হাত বুলিয়ে দিতে ওর ঘুম ভাঙলো । ঘুম চোখে ও রুপম কে দেখতে পেয়ে স্বপ্ন দেখছে ভেবে নিজে বলতে শুরু করলো….

তনয়া - আমার কাছে এসোনা তুমি । কেন এসেছ এখানে? আমি তো মরে যাবো আর কিছুদিনেই । পারলামনা আমি তোমার সাথে থাকতে । বাচঁবো না আমি আর বাঁচবো না । বলতে বলতে কাঁদতে থাকলো তনয়া ।

রুপম আর বাকি সবাই মিলে ওকে শান্ত করলো । 

রুপম - কেন এসব ভাবছো তুমি? কিচ্ছু হবেনা তোমার ! আমরা সবাই তোমার পাশে আছি দেখো ! কিচ্ছু হবেনা তোমার কিচ্ছু না ! 

তনয়া - আমার ব্রেক আপ চাই ।

রুপম - কিন্তু কেন !!!

তনয়া - আমি বাঁচবো না আর । আর বাঁচলেও আমার আর মাথায় চুল থাকবে না । খারাপ দেখতে হয়ে যাবো আমি । তখন তুমি আমাকে ছেড়ে সেই অন্য কারোর কাছে চলে যাবে । তখন আমি ওই নতুন জীবনেও মৃত্যু খুঁজব । তাই এখন ই আামর ব্রেকআপ চাই । চলে যাও তুমি এখান থেকে ।

রুপম - তোমার কিচ্ছু হবেনা তনু...তুমি আবার সুস্থ হয়ে উঠবে । আবার আমরা একসাথে ঘুরতে যাবো ।

তনয়া - না এটা হয় না । আমার রূপ নষ্ট হয়ে যাবে । কেউ আমার দিকে দেখবেনা । তুমিও না । এখন শুধুই আমায় মিথ্যে সান্তনা দিচ্ছ কেন !!!

রুপম - না মিথ্যে নয় । একবার বিশ্বাস করো আমাকে ! আমি তো তোমায় ভালোবাসি । তোমার মনটা কে আমি ভালোবাসি । বড্ড ভালোবাসি । তোমার রূপ তোমার চুল কিচ্ছু লাগবেনা । তোমার সুন্দর মন টার জন্য তুমি আমাদের সবার কাছে সারাজীবন সুন্দরীই থাকবে । CUTE BENGALI LOVE STORY

তনয়া খুব কাঁদতে থাকলো । রুপম জড়িয়ে ধরলো তাকে । মাথায় হাত বুলিয়ে শান্ত করলো তাকে । অন্যান্য বন্ধুরা চুপ করে বসে থাকলো । ওদেরকে নিজেদের মধ্যে কথা বলতে দিলো কারণ তনয়া কে যদি কেউ আবার হাসি খুশি করতে পারে ত একমাত্র রুপম ।

রুপম - তনু...আমার দিকে তাকাও ...তুমি তো আমাকে ভালোবাসো বলো ! একবার বিশ্বাস করে দেখো আমাকে ! এখানের সবাইকে সাক্ষী রেখে বলছি আমি কখনো তোমার দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবনা । আমার চাই না তোমার রূপ । আমার  শুধু তোমাকে চাই ।

তনয়া আসতে আসতে শান্ত হতে থাকলো । পরেরদিন ওদের আবার বাইরে যাওয়ার কথা ডাক্তার দেখাতে ।

তনয়া - তুমিআমি যদি বেঁচে যাই... সত্যিই থাকবে আমার সাথে?

রুপম - সারাজীবন থাকবো । কিচ্ছু চিন্তা করোনা তুমি । সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে এসো । আমি তোমার জন্য অপেক্ষা করবো । তুমি ফিরে এসে আমায় দেখে ঠিক বুঝতে পারবে আমার মত তোমাকে আর কেউ ভালবাসতে পারে না । আর তখন তোমার মন থেকে এই সব ভয়গুলো কাটিয়ে দেব আমি । আর আমার বিশ্বাস তুৃমি আবার আমার কাছে ফিরে আসবে । সুস্থ হয়ে ফিরে আসবে ।

রুপম তনয়ার কপালে একটা চুমু দিল । তনয়া রুপমের বুকে মাথা রাখলো ।

সেদিন বাড়ি ফেরার পথে রুপম খুব কেঁদেছিল । তনয়ার চেয়ে বেশি  কেঁদেছিল । কিন্তু সেটা লুকিয়ে । তনয়া কে জানতে দেয় নি । নাহলে তনয়া আরও ভেঙে পড়তো ।

পরেরদিন তনয়া কে নিয়ে স্টেশন এ ট্রেন ধরতে যাওয়ার সময় রুপম স্টেশন এ ওর জন্য অপেক্ষা করেছিল । ওর সাথে দেখা করে একেবারে ওদের ট্রেন ছাড়ার পর বাড়ি ফিরেছিল আর প্রত্যেকটা দিন অপেক্ষা করে বসে থাকতো তনয়ার জন্য ।

একমাস পর তনয়া বাড়ি ফিরলো । পরেরদিন ই সব বন্ধুরা আবার ওদের বাড়ি গিয়েছিল ওর সাথে দেখা করতে । তনয়ার মাথায় আর একটাও চুল নেই । সব চুল পড়ে গিয়েছে । মাথায় একটা স্কার্ফ বেঁধে রয়েছে । রুপম গিয়ে ওর সামনে দাঁড়াতেই তনয়া বললো ….

তনয়া - দেখো বেঁচে ফিরে গেলাম । দেখছো আমাকে ? পারবেনা তুমি আমাকে এইভাবে নিয়ে সারাজীবন কাটাতে । চলে যাও তুমি …… BENGALI ROMANTIC LOVE STORY

রুপম আর কথা শেষ করতে দিলোনা ওকে । জড়িয়ে ধরলো ।

রুপম - কোথাও যাব না আমি তোকে ছেড়ে বুঝেছিস ! আমি শুধু তোর... এই দেখ তোকে জড়িয়ে ধরেছি । ছাড়া দেখি আমাকে !

তনয়া অবাক হয়ে গেল এবার । ও বুঝলো রুপম সত্যিই ওকে পাগলের মত ভালবাসে । রুপম কে এবার ও শক্ত করে জড়িয়ে ধরলো । সেদিন ঘরের বাইরে থেকে তনয়ার বাবা মা সব দেখেছিল । আর কিছু বললোনা ওদেরকে ।

ওরা তখন সেকেন্ড ইয়ারের ছাত্র ছাত্রী ছিল । একসাথে পড়াশোনা কমপ্লিট করে ওরা বিয়ে করেছে । এখন ওরা বিদেশে থাকে । দুজনেই বড়ো চাকরি করে । রুপম একবারের জন্যও কোনোদিন তনয়া কে কষ্ট পেতে দেয়নি ।  বুঝতে দেয়নি ও অন্যদের থেকে আলাদা । বরং ওর কাছে পৃথিবীর সবকিছুর আগে ওর তনু আর সবচে বেশি সম্মান করে, ভালবাসে , নিজের সবটুকু দিয়ে ওকে আগলে রেখেছে আনন্দে রেখেছে । তনয়াও রুপমের সাথে খুব সুখী । ভালো থাকুক ওরা । চিরকাল অটুট থাকুক ওদের মত এরকম প্রত্যেকটা সম্পর্কের বন্ধন ।।

BENGALI LOVE STORY - 'আমি শুধু তোর' BENGALI LOVE STORY -  'আমি  শুধু তোর' Reviewed by Bengali love status on May 14, 2020 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.